ঢাকা শনিবার, ২৫শে মে ২০১৯, ১২ই জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬


মুক্তিযোদ্ধা শব্দের আগে ‘ভুয়া’ ব্যবহার নয় : হাইকোর্ট


১৫ মে ২০১৯ ১৩:১২

আপডেট:
২৫ মে ২০১৯ ২১:৪০

মুক্তিযোদ্ধা সম্বোধনের আগে ‘ভুয়া’ শব্দ ব্যবহার করা যাবে না বলে সতর্ক করেছে হাইকোর্ট। সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান ও গণমাধ্যমের কেউ মুক্তিযোদ্ধা শব্দের আগে ‘ভুয়া’ শব্দ ব্যবহার করলে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে তলব করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছে উচ্চ আদালত। মুক্তিযোদ্ধা সনদ যাচাই-বাছাই সংক্রান্ত বিষয়ে করা একটি রিট আবেদনের শুনানির সময় বিচারপতি এফ আর এম নাজমুল আহসান ও

বিচারপতি কে এম কামরুল কাদেরের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেয়। আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ বি এম আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার জানান, একজন মুক্তিযোদ্ধার সনদ যাচাই-বাছাইয়ের জন্য জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিলের (জামুকা) পাঠানো নোটিসের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা একটি রিট আবেদনের শুনানিতে আদালত মৌখিকভাবে এমন আদেশ দিয়েছে।

আদালতের বরাতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের ত্যাগের মূল্যায়নে আজকে স্বাধীন বাংলাদেশ হয়েছে। হাইকোর্ট বলেছে, মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন ২০০২ এর ৭ (ঝ)-এ স্পষ্টভাবে বলা হয়েছে, কোনো ব্যক্তি মুক্তিযোদ্ধা সনদ জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়া সনদ নিয়ে নিজেকে মুক্তিযোদ্ধা দাবি করে তাহলে সেটা সেই ব্যক্তির দোষ বা অপরাধ। এ কারণে সামগ্রিকভাবে জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান মুক্তিযোদ্ধাদের ক্ষেত্রে কোনোভাবেই এ শব্দ (ভুয়া) ব্যবহার করা সমীচীন হবে না। এতে সব মুক্তিযোদ্ধার প্রতি অসম্মান হয়।’

আবদুল্লাহ আল মাহমুদ বাশার বলেন, ‘মুক্তিযোদ্ধাদের নামের আগে “ভুয়া” শব্দ ব্যবহার না করতে প্রজাতন্ত্রের কর্মচারী-কর্মকর্তা হোন বা গণমাধ্যমের কোনো কর্মী হোন, কেউ যেন লিখিত বা অলিখিতভাবে এ ধরনের “ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা” শব্দটি ব্যবহার না করেন, এ বিষয়ে হাইকোর্ট সবার প্রতি নির্দেশ প্রদান করেছে। যদি এর ব্যত্যয় ঘটিয়ে “ভুয়া” শব্দ ব্যবহার করে মুক্তিযোদ্ধাদের অসম্মান করা হয়, তাহলে প্রয়োজনে হাইকোর্ট সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিকে তলব করতে পারে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যিনি জালিয়াতির মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা সনদ পেয়েছেন, তিনি তো মুক্তিযোদ্ধা নন। এ অপরাধের কারণে সব মুক্তিযোদ্ধাকে কটাক্ষ করে অসম্মান প্রদর্শন করা যাবে না। জালিয়াতির মাধ্যমে সনদে নিজেকে মুক্তিযোদ্ধা দাবি করলে এই অপরাধে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কিন্তু সামগ্রিকভাবে মুক্তিযোদ্ধারা কখনো ভুয়া হতে পারে না।’