ঢাকা বৃহঃস্পতিবার, ২১শে নভেম্বর ২০১৯, ৮ই অগ্রহায়ণ ১৪২৬


তুরস্ক-কুর্দি যেন দুই শিশু, তাই একটু মারামারি করতে দিলাম: ট্রাম্প


১৮ অক্টোবর ২০১৯ ১২:৫৫

আপডেট:
২১ নভেম্বর ২০১৯ ২৩:৩৩

তুরস্ক-কুর্দি বাহিনীর মধ্যে সংঘাতকে দুই শিশুর লড়াই বলে আখ্যা দিলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

ডন জানায়, মারামারি করার জন্য বাচ্চাদের মতোই আচরণ করছিল বলে দুই পক্ষের এই যুদ্ধকে সম্মতি দিয়েছেন তিনি, টেক্সাসে এক বক্তব্যে এমনটাই বলেন ট্রাম্প।

সমর্থকদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমি এখানে ব্যতিক্রম কাজ করেছি। আমি তাদের বললাম যে, তোমাদের দুই পক্ষকে কিছুটা সময় যুদ্ধ করা উচিত।’

তিনি বলেন, ‘বিষয়টা অনেকটা দুইটা বাচ্চার মধ্যে ঘটনার মতো। তাদের মারামারি করতে দিলেন তারপর আবার তাদের ছাড়িয়ে দিলেন।’

সিরিয়ায় কুর্দিদের বিরুদ্ধে তুরস্কের আট দিনের এই অভিযানে বেসামরিক লোকসহ দুই পক্ষের ৫০০ জনের মতো নিহতের ঘটনা ঘটেছে। নিহতদের মধ্যে কুর্দিদের সংখ্যা বেশি।

ট্রাম্প জোর দিয়ে বলেন, ‘এইখানে মার্কিনিদের এক ফোঁটাও ঝরেনি।’

সিরিয়ায় আইএস দমনে যুক্তরাষ্ট্রের মিত্র হিসেবে কাজ করে কুর্দিরা। সেসময় বিপুলসংখ্যক আইএস যোদ্ধাদের আটক করে তারা।

কিন্তু তুরস্কের অভিযানে কুর্দিদের পাশ থেকে সরে দাঁড়ায় যুক্তরাষ্ট্র। এ নিয়ে ঘরে-বাইরে সমালোচিত হন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

পরবর্তীতে তুর্কি বাহিনী-কুর্দিদের এ লড়াই তীব্র আকার ধারণ করায় এবং বেসামরিক লোকের নিহত সংখ্যা বাড়তে থাকায় তুরস্কের এই অভিযান বন্ধে আলোচনার উদ্যোগ নেয় যুক্তরাষ্ট্র।

ফলে উত্তর সিরিয়া সীমান্তে তুরস্ক ঘোষিত ‘সেফ জোন’ থেকে কুর্দি যোদ্ধাদের প্রত্যাহার শর্তে অভিযান বন্ধে সম্মত হয় আঙ্কারা।

বিবিসি জানায়, আঙ্কারায় যুক্তরাষ্ট্রের ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সঙ্গে এক বৈঠকের মধ্য দিয়ে অভিযান বন্ধের এমন সিদ্ধান্ত নিলেন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়িপ এরদোয়ান।

বৈঠক শেষে মাইক পেন্স জানান, পাঁচ দিনের জন্য সব ধরনের হামলা বন্ধ রাখা হবে এবং সীমান্তে ‘সেফ জোন’ থেকে কুর্দি বাহিনীকে প্রত্যাহারের সব ধরনের সহায়তা করবে যুক্তরাষ্ট্র।